Breaking News

“মৃত মায়ের” বুকে দুধের শিশুর কান্না, হৃদয়-বিদারক দৃশ্য।

“মৃত মায়ের” বুকে শিশুর কান্না, হৃদয়-বিদারক দৃশ্য।
মা – একটি ছোট্ট শব্দ, এই শব্দের মধ্যেই লুকিয়ে আছে পৃ,থিবীর সব মায়া, মমতা, অ,কৃত্রিম স্নেহ, আদর, নিঃস্বার্থ ভা,লোবাসার সব সুখের

কথা। চাওয়া-পাওয়ার এই পৃ,থিবীতে বাবা-মায়ের ভালোবাসার সঙ্গে কোনো কি,ছুর তুলনা চলে না।

মায়ের তুলনা মা নিজেই। মায়ের মতো এমন মধুর শব্দ অভিধানে দ্বি,তীয়টি আর নেই। নদীর তলদেশে তো যাওয়া যায় কিন্তু মায়ের

ভা,লোবাসার গভীরতা পরিমাপ করা যায় না।নতুন খবর হচ্ছে, হাস,পাতালের বিছানায় শুয়ে আছে সুমি বেগম। পাশে কাত,রাচ্ছে তার নয় মাসের কন্যাশিশু।

বা,কি সবার কাছে সুমি তখন মৃত। কিন্তু তার অবু,ঝ শিশু জানে না মৃত্যু কি? জানে না “মা” বলে তার আর কেউ নেই। তাইতো তখনো

চে,ষ্টা করে যাচ্ছিলো মায়ের বুক থেকে দুধপানের। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই দৃশ্য দাগ কেটেছে সবার মনে। ঘটনাটি ঘটেছে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উ,পজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

বুধবার, (৩০জুন) তীব্র পেটব্যথা নিয়ে কমল-গঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয় ২৫, বছর বয়সী সুমি বেগম। গতকাল বৃহস্পতিবার

(০১জুলাই) দু,পুরে মারা যান তিনি। তিনি কমলগঞ্জ উপজেলার রহিম,পুর ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের মন্নান মিয়ার মেয়ে।

মৃত, নারীর ভাই পারভেজ মিয়া জানান, সপ্তাহখানেক আগে সে বাবার বাড়ি বেড়াতে এসেছিলো। এর মধ্যে পে,টব্যথার সমস্যা নিয়ে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পারভেজ মিয়ার অভিযোগ,

হাস,পাতালে চিকিৎসক ও সেবিকারা রোগীকে গুরুত্ব দেয়নি। এখানে চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা না থাকলে তারা রোগীকে উন্নত হাস,পাতালে স্থানা,ন্তরের পরামর্শ দিতে পারতেন বলেও উল্লেখ করেন পারভেজ।

অন্য,দিকে, হাসাপাতাল কতৃপক্ষের দাবি, ঐ নারীকে যথাযথ চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে। গণমাধ্যমকর্মী ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি জেনেছেন কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এম মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া।

বুধ,বার (৩০জুন) তীব্র পেটব্যথা নিয়ে কমলগঞ্জ উপ,জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয় ২৫ বছর ব,য়সী সুমি বেগম। গতকাল বৃহস্পতিবার (

০১জুলাই) দুপুরে মারা যান তি,নি। তিনি কম,লগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের মন্নান মিয়ার মেয়ে।

মৃত নারীর ভাই পারভেজ মি,য়া জানান, সপ্তাহখানেক আগে সে বাবার বাড়ি বেড়াতে এসে,ছিলো। এর মধ্যে পেটব্যথার সমস্যা নিয়ে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পারভেজ মিয়ার অভিযোগ, হাসপাতালে চিকিৎসক ও সে,বিকারা রোগীকে গুরুত্ব দেয়নি। এখানে চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা না থাকলে তারা রো,গীকে উন্নত হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দিতে পারতেন বলেও উল্লেখ করেন পারভেজ।

তিনি বলেন, বিষয়টি অবগত হবার পর তিনি ঐ রোগীর ফাইল তল,ব করে দেখেছেন,। চিকিৎসায়, তিনি কোনো অসঙ্গতি দেখেননি। তবে বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ পা,ওয়া গেলে তদন্ত করে দেখার আশ্বাস, দেন, তিনি”!

About jacob done

Check Also

এহসান” গুরুপ নিয়ে খ্যাত, কুয়াকাটা হুজুরের মন্তব্য!

এহসান” গুরুপ নিয়ে খ্যাত, কুয়াকাটা হুজুরের মন্তব্য! ”হেলিকপ্টার হুজুর” খ্যাত কুয়াকাটার মাওলানা মো. হাফিজুর রহমান’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *