Breaking News

বিক্রেতা থেকে আম বাগানের মালিক জামাল

অনলাইনে আম বিক্রির পরে বাণিজ্যিকভাবে আম বাগান করে বেশ সাফল্য পেয়েছেন কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মশান এলাকার এস এম জামাল। আড়াই বিঘা জমিতে আম চাষ করে এলাকায় সাড়া ফেলে দিয়েছেন। নিজের বাগানের আম স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি বিক্রি করছেন অনলাইন মাধ্যমে।

এস এম জামাল বলেন, ‘গত বছর থেকে করোনাকালীন সময়ে বেকার থেকে উত্তরণের উপায় হিসেবে অনলাইনে আম বিক্রি করে কিছুটা লাভবান হয়েছি। এর ধারাবাহিকতায় এলাকার একটি আড়াই বিঘার আম বাগান তিন বছরের জন্য লিজ নেই। আমার বাগানে আম্রপালি, মল্লিকা, হাঁড়ি ভাঙা ও হিমসাগর জাতের গাছ রয়েছে। গত এক বছর ধরে এই বাগান পরিচর্যা করার ফলে প্রায় প্রতিটা গাছেই আম এসেছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আম্রপালি, হাঁড়িভাঙ্গা ও হিমসাগর জাতের মোট ২২৫টি আম গাছ রয়েছে। যেখানে এবছর ১৫০ থেকে ১৬০ মণ আম পাবো বলে আশা করছি। ইতোমধ্যে ১০ মন আম বাজারে এবং অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করেছি। বর্তমানে বাগান থেকেই ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। এই মৌসুমে খরচ বাদে সোয়া লাখ থেকে দেড় লাখ টাকা লাভ হবে বলে আশা করছি।

এস এম জামাল বলেন, ‘বাণিজ্যিকভাবে আম বাগান বা কৃষি খামার করে একজন ব্যক্তি সহজেই স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারেন। যার উদাহরণ আমি। আম বাগানে তেমন পরিশ্রম নেই, তবে নিয়মিত দেখাশোনা করি। মিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসার রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানান, উপজেলায় বেশ কয়েকটি আম বাগান রয়েছে। এ উপজেলার মাটি আম বাগানের জন্য বেশ উপযোগী। একারণে এখানে প্রতিনিয়ত বাণিজ্যিকভাবে আম চাষ বাড়ছে।

About admin

Check Also

লাল পিঁপড়ার ডিমে চলে ৪০ পরিবার

কালিয়াকৈর-শ্রীপুর আঞ্চলিক সড়কের দুই পাশেই শালবন। মজিদচালা এলাকায় একদিন দেখা যায়, একটা লম্বা বাঁশ ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *